যে সরল সত্যগুলো জানা প্রয়োজন নেটওয়ার্কারদের

আমি ২০০৩সাল থেকে নেটওয়ার্ক মার্কেটিং এর সাথে জড়িত থাকলেও তার দু’বছর পর থেকেই গতানুগতিক ধারার চাকুরী শুরু করেছিলাম। কিন্তু অনেক কিছু থামলেও কখনও এমএলএম নিয়ে চিন্তা-ভাবনা থেমে থাকেনি। এর অন্যতম কারণ ছিল আমি বিজনেস এডমিনিষ্ট্রেশনের ছাত্র ছিলাম আর এজন্য বিষয়টি আমাকে খুব ভাবাতো। এই সময় কোন প্রতিষ্ঠানে কাজ না করলেও প্রতিটি প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে জানার চেষ্টা করতাম। এরই প্রেক্ষাপটে ৫/৬টি বই লেখার অনুপ্রেরণা পেয়েছি। কিন্তু স্বাভাবিকভাবেই আমার নিজের মনে প্রশ্ন আসে তা হলো কেন এত সহজে এই এমএলএম বিষয়টি মানুষের মাঝে ছড়িয়ে পড়ে আর কেনইবা মানুষ এ থেকে সহজে সরে যেতে পারে না বা এড়িয়ে যেতে পারে। আমি কিছু কারণ খুঁজে পেয়েছি হয়তো অনেকের সাথে মিলে যাবেঃ
ক) নেটওয়ার্ক মার্কেটিং মানুষকে শেখায় কিভাবে কথা বলতে হবে বা হয়। এটি মানুষকে বড় হতে শেখায়, স্বপ্ন দেখতে শেখায়। স্বপ্ন গড়তে শেখায়।
খ) এটি বন্ধুত্ব, সহযোগিতা কিংবা সমবায়ের মতো যা খুব অল্প সময়ে কিছু মানুষকে বিশ্বাসের বৃত্তে নিয়ে আসে। এবং পারস্পরিক সম্পর্ক তৈরী করে।
গ) এখানে কোন গোঁড়ামী, রাজনীতি, পেশী শক্তির প্রয়োগ নেই এবং প্রয়োজনও নেই। ফলে তরুনদের মধ্যে ভদ্রতা, কার্টিসি বা আচরণগুলো ভালভাবে গড়ে উঠে। যত বেশী উপরে যায় ততই সবার সাথে মিশে থাকার প্রয়োজন বাড়তে থাকে।
ঘ) কিছু ছেলেদের দেখে বুঝার উপায় নেই তার শিক্ষাগত যোগ্যতা কতটুকু। কিন্তু তাকে দেখে, কথা বলে কিংবা আচরণ পর্যবেক্ষণ করে বুঝতে হবে সে উচ্চশিক্ষিত বস্তুতপক্ষে সে হয়তো মাধ্যমিক পাশ।
ঙ) যে ছেলেটি কথাই বলতে পারতো না সে এখন ১হাজার লোকের সম্মুখে বক্তৃতা দেয়। সে এখন সম্মানিত।
চ) যাকে নিয়ে মা-বাবা স্বপ্ন দেখেনি সেই এখন একমাত্র অবলম্বন।
ছ) যে ছেলে পাড়ায় দুষ্ট রাজনীতি করতো, নয়তো ইভটিজিং করতে গিয়ে ধরা পড়তো, অথবা আড্ডায় পড়ে নষ্ট হয়ে পরিবার ও সমাজের বোঝা হতো সে এখন সবার আগে ট্রেনিং রুমে বসে।
 
আমি বিগত ১৪বছর নেটওয়ার্ক মার্কেটিং এর কোন ত্রুটি খুঁজে পাইনি তবে কিছু দুষ্ট ব্যবসায়ীর দেখা পেয়েছি যাদের কাছে পৃথিবীর কেহ নিরাপদ নয় নেটওয়ার্ক মার্কেটিং-তো নয়ই।
 
উপরের সবগুলো নেটওয়ার্ক মার্কেটিং এর পজেটিভ সাইড। ২০০৮ সালে আমি অনুভব করেছিলাম মানুষের কাছে থাকার এবং নিটোল ভালবাসা ও সম্মান পাওয়ার স্থান নেটওয়ার্ক মার্কেটিং। সব মানুষকে সৃষ্টিকর্তা আশরাফুল মাকলুকাত হিসেবে দুনিয়ার পাঠালেও পরিবার, সমাজ ও রাষ্ট্রের কারণে মানুষ অনেক কিছু হতে বঞ্চিত হয়। আর এ কারণেই মানুষে মানুষে বুদ্ধি-বিবেচনা, জ্ঞান ও অর্থ-বিত্তে পার্থক্য পরিলক্ষিত হয়। এজন্যই একজন মানুষ অন্যের বাড়ানো সহযোগিতার হাত চায়। এই সহযোগিতার হাতটুকুই মানুষকে প্রকৃত মানুষ করে তোলে।
নেটওয়ার্ক মার্কেটিং শুধু নিজেকে ধনী বানানোর মন্ত্র নয়, এটি সমাজ ও রাষ্ট্রে নিজের অবস্থানকে মহান করে তোলার মন্ত্র।
সবাই আসছে, জানছে, শিখছে, বুঝছে কিন্তু শুধু সময়টা বেশি নিয়ে নিচ্ছে। আর কিছুই নয়।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!