পিরামিড সেলিং ও বাংলাদেশী এমএলএম কোম্পানী

দেশীয় এমন একটি কোম্পানীও নেই যেখানে পিরামিড সেলিং হয় না আমার জানা মতে। শুধু দেশী নয় বিদেশী অনেক কোম্পানীতেও যা দৃশ্যমান। পিরামিড সেলিং এর কারণে ক্ষতিটা তাৎক্ষণিক বুঝা না গেলেও দীর্ঘসময় পর এর ব্যাপক ভয়াবহতা দেখা দেয়।
রাতারাতি ধনী হওয়ার যে প্রচেষ্টা সেটাই মূলত পিরামিডকে উৎসাহিত করে। অনেকে প্রশ্ন করে বা সমালোচনা করে বলেন কেন আমি এসব বিষয়ে লেখি? এসব বিষয়ে লেখার কারন হলো ১২বছর পর কোন এক নেটওয়ার্ক এসে যেন বলতে না পারে তার জীবনটা এমএলএম এর জন্য ধ্বংস।
দেড় যুগ ধরে লড়াই করার পর কোম্পানীর লিডাররাই বলছে কোম্পানী বন্ধ করে দেয়ার জন্য তাহলে কি দাঁড়ালো? বছরের পর বছর মানুষের সাথে প্রতারণা করে অবশেষে নিজেদের আখের গুছিয়ে সমাপ্তি টানতে চাইছে নাকি তাদের জ্ঞানের সীমাবদ্ধতা এতটুকুই?
লক্ষ লক্ষ নেটওয়ার্কার জেনেশুনেই অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে, অন্যদের বুঝানোর চেষ্টা করছে, কিছুদিন পর নিজেরাই সমালোচনায় গাঁ ভাসিয়ে দিচ্ছে।
কিছু ভুঁইফোড় ব্যবসায়ীর জন্য সবচেয়ে অসংগঠিত, স্বার্থপর আর জঘন্য পেশায় পরিণত হচ্ছে নেটওয়ার্ক মার্কেটিং বিপরীতে উল্টো চিত্রও আছে। অশিক্ষিত মানুষ নেটওয়ার্কিং জগতে আসে না তাই বলছি শিক্ষিত নেটওয়ার্কারদের আরেকটু সচেতন হতে হবে, পিরামিড সেলিং কোম্পানীগুলো থেকে নিজে ও অন্যকে রক্ষা করতে হবে।
কোন এক সময় লেখক এম,রহমান আরিফকে সত্য লেখার জন্য যারা গালমন্দ করেছে তারাই এখন চৌদ্দ শিকের ভাত খাচ্ছে।
সত্য জেনেও চুপ করে থাকাই সবচেয়ে বড় অপরাধ।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!